For a better experience please change your browser to CHROME, FIREFOX, OPERA or Internet Explorer.
ফেইসবুক মার্কেটিং এর আদ্যোপান্ত

ফেইসবুক মার্কেটিং এর আদ্যোপান্ত

  • ভূমিকা

আপনি কি নতুন ব্যবসা শুরুর পরিকল্পনা করছেন?

মার্কেটিং করার ক্ষেত্রে ফেসবুকে কাজে লাগাতে চান?

 

বর্তমান সময়ে সবচেয়ে আলোচিত এবং জনপ্রিয় একটি পেশা হলো স্টার্টআপ। তরুণ প্রজন্ম থেকে শুরু করে সকলে পছন্দের একটি পেশা হয়ে দাঁড়িয়েছে স্টার্টআপ । নিজের আইডিয়াগুলো বাস্তবায়ন করা যায় বিধায় এখন  সকলে পছন্দর পেশা  হলো স্টার্টআপ। স্টার্টআপকে এগিয়ে নিতে চাইলে  কিংবা আপনার ব্যবসাকে এগিয়ে নিতে হলে মার্কেটিং এর বিকল্প নেই। 

 

পূর্বে  মার্কেটিং করার ক্ষেত্রে মানুষ টেলিভিশন ,প্রিন্ট মিডিয়া ,বিলবোর্ড কিংবা মানুষের দ্বারে দ্বারে গিয়ে পণ্যের প্রচার করা হতো। কিন্তু এই প্রক্রিয়া খুবই সময়সাপেক্ষ এবং দীর্ঘমেয়াদি বিধায় তেমন ফলপ্রুস হতো না । কিন্তু সময় পাল্টেছে সেই সাথে মানুষের চাহিদা পাল্টেছে। মানুষের পছন্দের ধরণ পাল্টেছে। তাই সময়ের সাথে এখন ব্যবসার ক্মার্কেটিং  এর ক্ষেত্রে মানুষ এখন ভিন্ন প্রথার দিকে ঝুকছে।

 

বর্তমানে মানুষ সময়ের সাথে সাথে অনেক বেশি প্রযুক্তি নির্ভর হয়ে উঠেছে।দিনের বেশিভাগ সময় তাই মানুষ ব্যস্ত থাকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম গুলোতে।  সবচেয়ে জনপ্রিয় একটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম হলো ফেসবুক। জরিপ অনুসারে বিশ্বের প্রায় ২.২৭ বিলিয়ন মানুষ সক্রিয় ফেসবুক ব্যবহারকারী রয়েছে এবং প্রায় ১.৫ বিলিয়ন মানুষ প্রতিদিন ফেসবুক ব্যবহার করছে। ছোট্ট শিশু থেকে শুরু করে বৃদ্ধ মানুষ আজকাল ফেসবুক ব্যবহারের আওতাধীন রয়েছে। তাই যদি ব্যবসায়ের প্রচারের ক্ষেত্রে ফেসবুককে বেছে নেওয়া যায় তাহলে আপনি সবচেয়ে বেশি লাভবান হতে পারেন। 

 

বর্তমান তাই ব্যবসায়ীরা মার্কেটিং স্ট্যাটেজি হিসেবে বেছে নিচ্ছে ফেইসবুককে। মানুষে তাই ফেসবুককে ব্যবসার প্রধান মাধ্যম হিসেবে গড়ে তুলেছে। বিভিন্ন গ্রুপে  এর সাথে সংযুক্ত হয়ে কেনাকাটা চলছে বেশ ধুমধামে। এছাড়াও ফেসবুক শপের আলোকে এখন মানুষ ঘরে বসেই পছন্দের জিনিসপত্র কেনা বেচা করতে পারছে খুব সহজে। কিন্তু অনেকেই সঠিকভাবে জানান ফেসবুক মার্কেটিং কি ?কিংবা কিভাবে করতে হয় ফেসবুক মার্কেটিং। আমি আমার আজকের পোস্টের মাধ্যমে আপনাদের ফেসবুক মার্কেটিং নিয়ে ধারণা দেওয়ার চেষ্টা করব। আশা করি আপনাদের উপকার হবে।

  • ফেসবুক মার্কেটিং

এখন আপনার মনে প্রশ্ন আসতে পারে যে ফেসবুক মার্কেটিং কি ?ঘরে বসে নিজের পছন্দমতো যেকোনো সময়ে ফেসবুকের মাধ্যমে অনালাইনে ফেসবুক ব্যবহারকারীদের কাছে নিজের পণ্যসমূহের প্রচার এবং প্রসার করাকে বলা হয় ফেসবুক মার্কেটিং। সময়ের সাথে সাথে আজকাল ফেসবুক মার্কেটিং সকলের নিকট বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। তাই ব্যবসায়ীরা আজকাল ব্যবসার প্রচার ও প্রসার এর ক্ষেত্রে বেছে  নিয়েছে ফেসবুক কে। 

 

ফেসবুকে আপনি মার্কেটিং করার ক্ষেত্রে দু ধরনের পদ্ধতি বেছে  নিতে পারেন। যথা:

  • ফ্রি ফেসবুক মার্কেটিং 
  • পেইড ফেসবুক মার্কেটিং

 

চলুন বিস্তারিত জেনে আসা যাক এই দুই ফেসবুক মার্কেটিং পদ্ধতি সম্পর্কে :

  • ফ্রী ফেসবুক  মার্কেটিং

কোনো ধরণের অর্থ না ব্যয় করে নিজের ফেইসবুক পেইজের এর মাধ্যমে পণ্যের প্রচার ও প্রসার করাকে বলা হয় ফ্রী ফেসবুক মার্কেটিং। আপনি ফ্রি ফেসবুক মার্কেটিং এর আওতায় নিজের পণ্য সমূহ নিয়ে লিখালিখি করবেন ,নানা ধরণের কন্টেস্টের আয়োজন করবেন,ছবি তোলা পণ্যের প্রচার করতে পারবেন  ফফ্রি ফেইবুক মার্কেটিং এর মাধ্যমে। তবে  পেইজে ফলোয়ার বেশি হলে কেবল আপনি এই ফ্রি ফেইসবুক মার্কেটিং করতে পারবেন। 

  • পেইড ফেসবুক মার্কেটিং

কোনো ধরণের বিজ্ঞাপন প্রচারকারী প্রতিষ্ঠানকে  অর্থ প্রদানের মাধ্যমে নিজের ব্যবসার পণ্যসমূহ ফেসবুকের মাধ্যমে প্রচার করাকে বলা হয় পেইড ফেসবুক মার্কেটিং।ফেসবুক সেই এড সমূহ বিভিন্ন ভিডিও এর সাথে প্রদর্শন করে থাকে । বিজ্ঞাপন দেখে মানুষ পণ্য কেনার প্রতি বেশি আগ্রহ পোষণ করে থাকে

  • ফ্রী ফেসবুক মার্কেটিং কিভাবে করবেন

ফ্রি ফেইসবুক মার্কেটিং করার ক্ষেত্রে আপনাকে  যেসকল জিনিস মাথায় রাখা প্রয়োজন তা হলো:

১.পেইজ তৈরি করা

২. ওয়েবসাইট তৈরি করা 

৩.লোগো 

৪.ঠিকানা 

৫.মোবাইল নাম্বার 

৬.বিজনেসের নাম। 

 

আজকাল মানুষ ফেসবুকে নিজের ব্যবসার কাজে ব্যবহার করছে।উপরের বিষয়গুলো যদি আপনার বিজনেস পেইজে বজায় থাকে তাহলে আপনিও করতে পারে ফ্রী ফেসবুক মার্কেটিং। আপনি আপনার ব্যক্তিগত আইডি থেকে নিজের পন্যের প্রচারণা চালাতে পারবেন। কোন ক্রয় বিক্রয় গ্রুপের মাধ্যমে পন্যের প্রচারণা চালাতে পারেন।কাউকে ম্যাসেজ এর মাধ্যমে আপনার পণ্য কেনার ব্যাপারে উৎসাহিত করতে পারবেন।এছাড়াও পেইজের মাধ্যমে চালাতে পারবেন প্রচারণা তবে সেই ক্ষেত্রে পেইজে উপরের বিষয়গুলো বিদ্যমান থাকতে হবে।

  • পেইড ফেসবুক মার্কেটিং কিভাবে করবেন

বর্তমান সময়ে সবচেয়ে জনপ্রিয় এবং সবচেয়ে কার্যকরি হলো পেইড ফেসবুক মার্কেটিং। ফেসবুকের কেন্দ্র করে গড়ে উঠেছে ব্যবসার একটি বড় ক্ষেত্র। তাই আপনিও নিজের ব্যবসাকে আধুনিকায়ন করতে চাইলে করতে পারেন পেইড ফেসবুক মার্কেটিং।

 

পেইড ফেসবুক মার্কেটিং এর আওতায় আপনার পন্যসমূহের বিজ্ঞাপন প্রচার করা হবে ফেসবুকে। আমরা অনেক সময় ফেসবুকে ভিডিও সেকশনে ভিডিও এর ফাঁকে ফাঁকে আপনার বিজনেসের এর বিভিন্ন বিজ্ঞাপন উপস্থাপন করা হবে।উক্ত বিজ্ঞাপন যত আকর্ষণীয় হবে ততই মানুষ আপনার পন্য কেনার ব্যাপারে উৎসাহিত হবে।তাই টাকা খরচ হলেও অল্প সময়ে অধিক সংখ্যক গ্রাহকের সামনে নিজের ব্যবসার পন্য উপস্থাপন করতে হলে পেইড ফেসবুক মার্কেটিং এর মাধ্যমে। আজকাল অনেক প্রতিষ্ঠান রয়েছে যারা ফেইসবুক বিজ্ঞাপন তৈরি করে থাকে। গ্রাহকদের সুবিধার কথা চিন্তা করে তারা বিজ্ঞাপন তৈরির নানা ধরণের প্যাকেজের আয়োজন করে৷ থাকে।তাই আপনার সুবিধামত বেছে নিতে পারেন আপনার পছন্দের প্যাকেজ।

  • কোনটি বেশি উপযোগী

বাংলাদেশের মতো দেশে পেইড ফেসবুক মার্কেটিং সিস্টেম বেশি উপকারি।কারণ এক সাথে কম সময়ে অধিক সংখ্যক গ্রাহককে রিচ করতে হলে পেইড ফেসবুক মার্কেটিং সিস্টেমের বিকল্প নেই।কিন্তু ফ্রী ফেসবুক  মার্কেটিং অনেক দীর্ঘমেয়াদি একটি প্রক্রিয়া। তাই একটি টাকা খরচ হলেও বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে ফ্রী মার্কেটিং সিস্টেমের কার্যকারিতা অত্যাধিক।

  • উপসংহার

প্রযুক্তি আমাদের দৈনন্দিন জীবনের অবিচ্ছেদ্য অংশ হয়ে দাঁড়িয়েছে। তাই প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে ব্যবসার উন্নয়ন এবং প্রচারে ফেইসবুক  মার্কেটিং এর বিকল্প নেই।

Comments (1)


  1. Triadic Closure Property- Key to Facebook Success – Interactive Cares

    […] Related: ফেইসবুক মার্কেটিং এর আদ্যোপান্ত […]

leave your comment