For a better experience please change your browser to CHROME, FIREFOX, OPERA or Internet Explorer.
এসইও (SEO) সেটিংস চালু করার নিয়ম

এসইও (SEO) সেটিংস চালু করার নিয়ম

ব্লগ বা ব্লগিং সম্পর্কে বর্তমানে প্রায় অনেকেরই ধারনা রয়েছে। যারা অনলাইনে ব্লগিং করে থাকে তারা ব্লগিং এর জন্য কিছু কৌশল অবলম্বন করে থাকে। তেমনি এসসিও (SEO-Search engine optimization) ভিত্তিক ব্লগগুলোর জন্যও ব্লগারদের এসসিও (SEO) সেটিংস চালু করতে হয়। এসসিও (SEO) সেটিংস চালু করার নিয়ম সম্পর্কে জানাতেই আজকের এই ব্লগটি।

চলুন জেনে নেওয়া যাক এসসিও (SEO) সেটিংস চালু করার নিয়ম-

প্রথমে আপনি ব্লগার ড্যাশবোর্ডে লগ-ইন করবেন। ড্যাশবোর্ডে লগইন করার পর সেখান থেকে Unders settings>Search preference  এর মাধ্যমে ব্লগটিম কর্তৃক নতুন সংযোজিত এসসিও(SEO) সেটিংস অপশন পেয়ে যাবেন।

সেখানে আপনি স্টেপ বাই স্টেপ যেসকল সেটিংস্ট দেখতে পাবেন পর্যায়ক্রমে তা পূরণ করতে হবে। মনে রাখবেন কোন সেটিংস ভুল হলে আপনার ব্লগটি ডি-ইনডেক্সিং হয়ে যাওয়ার সম্ভবনা থাকবে। তাই সতর্কতা অবলম্বন করুন।

 

এখন চলুন জেনে নেওয়া যাক ব্লগার টিম কর্তৃক নতুন সংযোজিত এসসিও (SEO) ফিচার সম্পর্কে –

 

ডেসক্রিপশন মেটা ডাটাঃ

 (Description metadata)

ডেসক্রিপশন মেটা ডাটা নামটি শুনে নিশ্চই বুঝতে পারছেন এখানে আপনার ব্লগ সম্পর্কে ব্যাখ্যা করতে হবে। আপনার ব্লগটি মূলত কি ধরনের তার সম্পর্কে  সংক্ষিপ্ত বর্ণনা করতে হবে। ১৫০ অক্ষরের মধ্যে আপনার ব্লগের সারমর্ম তুলে ধরুন যাতে পাঠকসমাজ আপনার ব্লগটি সহজেই খুঁজে পান।

এক্ষেত্রে আপনি আপনার মেইন কী-ওয়ার্ডটি ব্যবহার করবেন। যাতে পাঠক আপনার সেই কী-ওয়ার্টটি সার্চ দিলেই আপনার ব্লগটি সহজেই খুঁজে পান।

আরেকটি বিষয় খেয়াল রাখতে হবে, আপনার ডেসক্রিপশন মেটা ডাটা ট্যাগটিতে আপনার শব্দসীমা ১৫০ অক্ষর তাই ১৫০ শব্দের মধ্যেই ব্লগ সম্পর্কে লিখবেন এর বেশি হলে গুগল তা গ্রহণ করবে না।

 

কাস্টমস রিডাইরেক্টসঃ

(Customs redirect)

মিসিং ট্রাফিক চিন্তিত করে সেগুলোকে সঠিক ট্রাফিক কনভার্ট করা কাস্টমস রিডাইরেক্টস। যখন আপনার  সহায়ক হিসাবে সাইড নির্বাচনে থার্ড পার্টি সাইডকে লিংক করতে যাবেন বা একটি পেইজ রিমোভ করতে যাবেন তখন গুগল ওয়েব মাস্টার টুলের সহায়তা নিবেন এবং মাস্টার টুলটি ৪০৪ পেজ খুঁজে পাবেন এবং রিডায়রেকশন সেট করতে পারবেন।

 

কাস্টমস ৪০৪ ইরর পেইজ মেসেজঃ

 (customs 404 error page message)

এটি মূলত ভুলভাবে টাইপ করা একটি পেইজ। যেখানে ভিজিটররা তাদের টাইপ করা পেইজটি খুঁজে পান না। এই পেইজটি আপনার থেকে HTML তৈরি করে দিতে বলবে যা আপনি আপনার ব্লগার ৪০৪ পেইজে দেখতে পারবেন।

 

নোফলোঃ

(nofollow)

নোফলো বা ওপেন ইন নিউ ট্যাব (open in new tab) দিয়ে আপনি একটি নিউ ট্যাব এক্সটরনাল লিংক ওপেন করতে পারবেন। পোস্ট এডিটর থেকে কোন লিংক যুক্ত করতে চাইলে ২টি অপশন আসবে-

*add the nofollow attribute and

*open the new tab

এই লিংকটি মূলত অপ্রাসঙ্গিক ডোমেইন ব্যবহার করতে করুন।

 

কাস্টমস রোবটস হেডার ট্যাগসঃ

(Customs robotos header tags)

কাস্টমস রোবটস হেডার ট্যাগটিকে সাধারণত মেটা ট্যাগ বলা হয়ে থাকে। এটি মূলত পেইজ স্পেসিফিক আ্যাপ্রোচ বা অভিগমন অনুসরণ করে থাকে। এই ট্যাগটি প্রতিটি পেইজ বা সাইডের ভিজিট করার দিক নির্দেশনা প্রদান করে  থাকে।

 

রোবটস ডট টেক্সট ফর ব্লগস্পটঃ

(Customs robots.text)

আপনার ব্লগ সাইটের কিছু বিশেষ অংশ থাকে যেই অংশটি আপনি চান না যে গুগল সেই অংশটিকে ভিজিট করুক রোবটস ডট টেক্সট ফর ব্লগস্পট মূলত আপনার সেই কাজটি সম্পাদন করে থাকে।

ব্লগস্পটে এসসিও (SEO) সেটআপের একটি বিশেষ অংশ হলো রোবটস ডট টেক্সট। এই সেটিংস ব্যবহার করার সময় মাথায় রাখবেন যেন ভুল না হয়। ভুল সেটিংস দিলে আপনার সাইডটির একটি বড় অংশ ডি-ইনডেক্সিং হয়ে যাওয়ার সম্ভবনা থাকে।

 

সর্বোপরী, ব্লগিংয়ের ক্ষেত্রে সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন (SEO) একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। ভিজিটর বৃদ্ধি করার জন্য সার্চ ইঞ্জিন সহায়ক ভূমিকা পালন করে থাকে। ব্লগস্পট ব্লগারদের জন্য উপরোক্ত আলোচিত নতুন যেসকল ফিচার সংযোজিত করেছেন তা ব্যবহার অনেকটাই সহজ এবং উপকারী। তাই উপরোক্ত ফিচারগুলো ব্যবহার করে আপনি এসসিও (SEO) সেটিংস চালু করে ব্লগিং সাইডে সহজেই নিজেকে সমৃদ্ধ করতে পারবেন এবং আশা করি আর্থিকভাবেও সাবলম্বী হয়ে উঠতে পারবেন।

আপনার সর্বাত্মক সফলতা কামনা করি।

আপনার মতামত দিন।

ধন্যবাদ।

 

leave your comment